বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৩৮ দিন পর শিশু’র লাশ উদ্ধার লুটপাট-দুর্নীতি রুখতে মুক্তিযুদ্ধের পুনর্জাগরণের ডাক কুমিল্লার মুরাদনগরে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সাংস্কৃতিক ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীর তানোরে আলুর জমিতে আছড়ে পড়ল প্রশিক্ষণ বিমান’ পাইলট আহত অপর প্রশিক্ষণার্থী অক্ষত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার-৪২ বিজিবির চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে গোদাগাড়ীতে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা-হেরোইন উদ্ধার যুবক আটক রংপুরে প্রথম ওমেন্স ড্রিমার ক্রিকেট একাডেমি টুর্নামেন্ট’র খেলা শুরু র‌্যাব-৫ এর অভিযানে বিদেশী পিস্তল’ ওয়ান শুটারগান, গুলি ও ম্যাগজিনসহ ০১ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেফতার মোহনপুরে পূজা মন্দিরের নিরাপত্তায় কাজ করছে সশস্ত্র আনসার সদস্যরা রংপুর মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের এএস আই কর্তৃক নবম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ!

কচাকাটায় তালিকায় সরাসরি নেই ৪ মুক্তিযোদ্ধার

এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :

নাগেশ্বরীতে স্বাধীনতার চার যুগ পেড়িয়ে গেলেও আজও সরাসরি মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হতে পারেনি যুদ্ধে অংশ নেয়া শহীদ মুক্তিযোদ্ধাসহ চার মুক্তিযোদ্ধা।

শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পরিবারসহ চার মুক্তিযোদ্ধা এখন তাদের জীবন সায়াহ্নে এসে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। পরিবার পরিজন নিয়ে খেয়ে না খেয়ে অভাব অনটনের মধ্য দিয়ে জীবন কাটছে তাদের।

মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অন্তর্ভূক্তির লক্ষ্যে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা ইউনিট কমান্ড কুড়িগ্রাম ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ উপজেলা ইউনিট কমান্ড নাগেশ্বরী কর্তৃক পৃথক পৃথক প্রত্যায়ন সূত্রে জানা গেছে-

শহীদ আছমত উল্লাহ: পিতা: মৃত: সেলিম শেখ, মাতা: মৃত: কছরভান বেওয়া, গ্রাম: শিবেরহাট, ইউপি: কচাকাটা, থানা: কচাকাটা, উপজেলা: নাগেশ্বরী, জেলা: কুড়িগ্রাম। তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করে ১৯৭১ সালে এপ্রিল মাসে হাবিলদার নুরুল ইসলামের অধীনে ঝাউকুটি, খোচাবাড়ি ইওথ ক্যাম্প এবং ভারতের বিভিন্ন স্থানে উচ্চতর প্রশিক্ষণ শেষে লালমনিরহাট মুক্তিযোদ্ধা ক্যাম্পে যোগদান করে সেখানকার কোম্পানী কমান্ডারের অধীনে যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে সম্মুখ যুদ্ধে ঘটনাস্থলেই শহীদ হন।

মো: নুরুল হক মোল্লা: পিতা-মৃত: রজব আলী মোল্লা, মাতা: মৃত. নছিমন, গ্রাম: মোল্লাপাড়া, ইউপি: বল্লভেরখাস, থানা: কচাকাটা, উপজেলা: নাগেশ্বরী, জেলা: কুড়িগ্রাম। তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন ১৯৭১ সালে জুন মাসে হাবিলদার নুরুল ইসলামের অধীনে ঝাউকুটি, খোচাবাড়ি ইওথ ক্যাম্প এবং ভারতের বিভিন্ন স্থানে উচ্চতর প্রশিক্ষণ শেষে সোনাহাট ব্রীজ মুক্তিযোদ্ধা ক্যাম্পে যোগদান শেষে সেখানকার কোম্পানী কমান্ডার ইসহাক আলীর অধীনে কুড়িগ্রামের সাহেবগঞ্জ অঞ্চলে পাকিস্তানী বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন।

মো: সৈয়দ আলী: পিতা: মৃত: ইসমাইল হোসেন, মাতা: মৃত. ফুলজন বেওয়া, গ্রাম: ব্যাপারীটারী (টেপারকুটি), ইউপি: কেদার, থানা: কচাকাটা, উপজেলা: নাগেশ্বরী, জেলা: কুড়িগ্রাম। তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করে ১৯৭১ সালে জুন মাসে হাবিলদার নুরুল ইসলামের অধীনে ঝাউকুটি, খোচাবাড়ি ইওথ ক্যাম্প এবং ভারতের বিভিন্ন স্থানে উচ্চতর প্রশিক্ষণ শেষে সোনাহাট ব্রীজ মুক্তিযোদ্ধা ক্যাম্পে যোগদান করে সেখানকার কোম্পানী কমান্ডার ইসহাক আলীর অধীনে কুড়িগ্রামের সাহেবগঞ্জ অঞ্চলে পাকিস্তানী বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে তিনি মুক্তিযোদ্ধা অন্তর্ভূক্তি যাচাই বাচাই তালিকায় ২য় পর্বে ৫১ (একান্ন) নম্বর ক্রমিকে অন্তর্ভূক্ত রয়েছেন।

মফিজ উদ্দিন: পিতা: মৃত. ঢেপরা মামুদ, মাতা: মৃত. মহিজন বেগম, গ্রাম: পূর্বখামার, ইউপি: কেদার, থানা: কচাকাটা, উপজেলা: নাগেশ্বরী, জেলা: কুড়িগ্রাম। তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করে ১৯৭১ সালে জুন মাসে হাবিলদার নুরুল ইসলামের অধীনে ঝাউকুটি, খোচাবাড়ি ইওথ ক্যাম্প এবং ভারতের বিভিন্ন স্থানে উচ্চতর প্রশিক্ষণ শেষে সোনাহাট ব্রীজ মুক্তিযোদ্ধা ক্যাম্পে যোগদান করে সেখানকার কোম্পানী কমান্ডার ইসহাক আলীর অধীনে কুড়িগ্রামের সাহেবগঞ্জ অঞ্চলে পাকিস্তানী বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন।

মো: আব্দুর রহমান: পিতা: মৃত. জসমত আলী, মাতা: মৃত. রহিমন বেগম, গ্রাম: বালাবাড়ী (ঢলুয়াবাড়ী), ইউপি: কেদার, থানা: কচাকাটা, উপজেলা: নাগেশ্বরী, জেলা: কুড়িগ্রাম। তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহন করে ১৯৭১ সালে জুন মাসে হাবিলদার নুরুল ইসলামের অধীনে ঝাউকুটি, খোচাবাড়ি ইওথ ক্যাম্প এবং ভারতের বিভিন্ন স্থানে উচ্চতর প্রশিক্ষণ শেষে সোনাহাট ব্রীজ মুক্তিযোদ্ধা ক্যাম্পে যোগদান করে তিনি উয়িং কমান্ডার আব্দুস কুদ্দুরের অধীনে কুড়িগ্রামের সাহেবগঞ্জ অঞ্চলে পাকিস্তানী বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন।

প্রত্যায়ন পত্রে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জেলা ইউনিট কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু উপরে উল্লেখিত ব্যক্তিদের মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে সরাসরি মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অন্তর্ভূক্তি ও সনদপত্র সহ তাদের স্বাভাবিক জীবন যাপনে সকল সুযোগ সুবিধা প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের কাছে জোর সুপারিশ প্রদান করেন।

সাইবার নিউজ একাত্তর / ২১শে নভেম্বর ২০১৯ইং আব্দুর রাজ্জাক (রাজু)

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

খন্দকার ভবন তানোর থানার মোড় প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন তানোর, রাজশাহী থেকে প্রকাশিত। মোবাইল: ০১৭১৫-২৯৭৫২৪, ০১৭১৬-৮৪৪৪৬৫, ০১৯২০-৪৪০১১২ E-mail: cbnews71@gmail.com Web: www.cybernews71.com Facebook: www.facebook.com/cbnews71 www.twitter.com/CyberNews71 Youtube: //www.youtube.com/cbnews71

© কপিরাইট : খন্দকার মিডিয়া গ্রুপ

 বাল্যবিবাহ রোধ করুন, মাদক মুক্ত সমাজ গড়ুন।

ব্রেকিং নিউজ :