বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৩৮ দিন পর শিশু’র লাশ উদ্ধার লুটপাট-দুর্নীতি রুখতে মুক্তিযুদ্ধের পুনর্জাগরণের ডাক কুমিল্লার মুরাদনগরে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সাংস্কৃতিক ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীর তানোরে আলুর জমিতে আছড়ে পড়ল প্রশিক্ষণ বিমান’ পাইলট আহত অপর প্রশিক্ষণার্থী অক্ষত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার-৪২ বিজিবির চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে গোদাগাড়ীতে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা-হেরোইন উদ্ধার যুবক আটক রংপুরে প্রথম ওমেন্স ড্রিমার ক্রিকেট একাডেমি টুর্নামেন্ট’র খেলা শুরু র‌্যাব-৫ এর অভিযানে বিদেশী পিস্তল’ ওয়ান শুটারগান, গুলি ও ম্যাগজিনসহ ০১ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেফতার মোহনপুরে পূজা মন্দিরের নিরাপত্তায় কাজ করছে সশস্ত্র আনসার সদস্যরা রংপুর মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের এএস আই কর্তৃক নবম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ!

তানোরে খাদ্যগুদামে ধান ক্রয়ে লটারি

ইমরান হোসাইন, নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজশাহীর তানোরে আমন ধান কাটা ও মাড়াই প্রায় শেষের পথে। মূলত পহেলা নভেম্বর থেকে আমন কাটা মাড়াই শুরু হয়েছে। একদিকে সংসারের খরচ, অন্যদিকে ওই জমিতে আলু ও সবজি চাষাবাদে খরচ যোগাতে উঠান থেকেই আমনের ধান বিক্রি শুরু করেন কৃষক। তবে, এঅবস্থায় ২৬ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে কৃষকের ধান ক্রয়ে লটারি পদ্ধতি চালু করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন বানু।

কৃষকরা বলছেন, গত বোরোতে ধানের নায্য দাম পাওয়া যায়নি। এখন আমন ওঠা শুরু করেছে। হাটে-বাজারে আমন ধান ৬৫০ থেকে ৭০০ টাকা মন দরে বিক্রি হচ্ছে। অর্থাৎ সরকারের নির্ধারণ করা সংগ্রহ মূল্যের চেয়ে প্রতি কেজি ধানে কৃষক ৭ থেকে ১০ টাকা কম পাচ্ছে। এই দামে ধান বিক্রি করে উৎপাদন খরচ তো দূরের কথা প্রতিবিঘায় ৩ হাজার টাকা লোকসান হচ্ছে। তবে, চাল কেনা শুরু হবে পয়লা ডিসেম্বর থেকে। সরকার প্রতি মন ধান ১০৪০ টাকা দরে কেনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। খাদ্যগুদাম যদি সরকার নির্ধারিত মূল্যে ধান ক্রয় করে তাহলে কৃষক লোকসান থেকে কিছুটা হলেও রেহায় পাবে বলে জানান।

কিন্তু বাজারে প্রতি মন মোটা স্বর্ণা ধান ৬৫০ থেকে ৭০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে বলে হাট-বাজার ঘুরে এসব তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। কৃষকরা বলছেন, আমন ধানের ফলন আশানুরুপ হচ্ছে। কিন্তু ধানের দাম না থাকায় উৎপাদন খরচ উঠছে না। এরপরও হাল ছাড়ছেন না কৃষক বলে জানালেন আমশো গ্রামের ধান চাষি মামুন মোল্লা ও নারায়নপুর গ্রামের রাব্বানীসহ আরো অনেকে। পুরো উপজেলায় ২২ হাজার ৪৬০ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদ হয়েছে। এসব জমিতে এবারে ১ লক্ষ ২৮ হাজার ২২ মেট্টিকটন ধান উৎপাদন হয়েছে বলে কৃষি অফিসার শামিমুল ইসলাম জানিয়েছেন।

তানোর খাদ্যগুদামের ওসি এলএসডি মোহাম্মদ তারিকুজ্জামান বলছেন, পুরো উপজেলার ২০ হাজার ১৫৬ জন কৃষকের কাছ থেকে শুধু ২৪শ মেট্টিকটন আমন ধান ক্রয় করা হবে। মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন বানু কৃষকের ধান ক্রয় করার জন্য লটারি পদ্ধতি চালু করেছেন। লটারিতে যেসব কৃষকের নাম আসবে তারাই কেবল গোদাউনে নায্যমূল্যে ধান বিক্রি করতে পারবেন বলে জানান তিনি।

সাইবার নিউজ একাত্তর / ২৬শে নভেম্বর ২০১৯ইং আব্দুর রাজ্জাক (রাজু)

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

খন্দকার ভবন তানোর থানার মোড় প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন তানোর, রাজশাহী থেকে প্রকাশিত। মোবাইল: ০১৭১৫-২৯৭৫২৪, ০১৭১৬-৮৪৪৪৬৫, ০১৯২০-৪৪০১১২ E-mail: cbnews71@gmail.com Web: www.cybernews71.com Facebook: www.facebook.com/cbnews71 www.twitter.com/CyberNews71 Youtube: //www.youtube.com/cbnews71

© কপিরাইট : খন্দকার মিডিয়া গ্রুপ

 বাল্যবিবাহ রোধ করুন, মাদক মুক্ত সমাজ গড়ুন।

ব্রেকিং নিউজ :