বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৮:৫৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৩৮ দিন পর শিশু’র লাশ উদ্ধার লুটপাট-দুর্নীতি রুখতে মুক্তিযুদ্ধের পুনর্জাগরণের ডাক কুমিল্লার মুরাদনগরে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সাংস্কৃতিক ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীর তানোরে আলুর জমিতে আছড়ে পড়ল প্রশিক্ষণ বিমান’ পাইলট আহত অপর প্রশিক্ষণার্থী অক্ষত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার-৪২ বিজিবির চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে গোদাগাড়ীতে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা-হেরোইন উদ্ধার যুবক আটক রংপুরে প্রথম ওমেন্স ড্রিমার ক্রিকেট একাডেমি টুর্নামেন্ট’র খেলা শুরু র‌্যাব-৫ এর অভিযানে বিদেশী পিস্তল’ ওয়ান শুটারগান, গুলি ও ম্যাগজিনসহ ০১ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেফতার মোহনপুরে পূজা মন্দিরের নিরাপত্তায় কাজ করছে সশস্ত্র আনসার সদস্যরা রংপুর মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের এএস আই কর্তৃক নবম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ!

শ্রীপুরের সাবেক কাউন্সিলর কামরুজ্জামান মণ্ডল গড়েছেন অবৈধ সম্পদের পাহাড়

স্টাফ রিপোর্টারঃ

গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর (কমিশনার) কামরুজ্জামান মন্ডল আওয়ামী সরকারের শাসন আমলে গড়েছেন সম্পদের পাহাড়।

বড়ভাই সদ্য বিদায়ী শ্রীপুর পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মন্ডল। তারই ক্ষমতার জোরে গড়ে তুলেছেন সন্ত্রাসী সিন্ডিকেট। মাদক ব্যবসা থেকে শুরু করে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, জুয়ার আসর বসানোসহ এমন কোন খারাপ কাজ নেই যা প্রতিনিয়ত করছেনা সাবেক কাউন্সিলর কামরুজ্জামান মণ্ডল ও তার হাতে গড়া গুন্ডাবাহিহী।

২০০৮ সালে শ্রীপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে নানা জালিয়াতি আর অনিয়ম করে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়। ভোটারদেরকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ভোট নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে কামরুজ্জামান মণ্ডলের বিরুদ্ধে। তার বড়ভাই বাবুল মন্ডল আর আসাদ মন্ডল সন্ত্রাসী স্টাইলে ভোটারদের জিম্মি করে ভোট হাসিল করে নেয়।

জানা যায়, কাউন্সিললার নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই কামরুজ্জামান মণ্ডল গড়ে তোলেন সন্ত্রাসী বাহিনী। তার ভাই-ভাগিনা মিলিয়ে নিজেরাই একটা সন্ত্রাসী সিন্ডিকেট করেন। যেখানে জুট, দখলবাজী ও মানুষকে বিভিন্ন ভাবে হতে হয় হয়রানী ও নির্যাতনের শিকার। যা এখনো বিদ্যমান। জুট সিন্ডকেট ও দখলবাজী করে এখন শত কোটি টাকার সম্পদ ও অালীশান বিলাশ বহুল বাড়ীর মালিক হয়েছেন সাবেক এই কাউন্সিলর। অথচ কামরুজ্জামান মন্ডল তার পৈত্রিক সূত্রে পেয়েছেন মাত্র ৩ বিঘা জমি।বর্তমানে শ্রীপুর উপজেলা ও পার্শ্ববর্তী উপজেলায় তার জমি ৫০ বিঘার উর্ধে।

তথ্যানুসন্ধানে আরোও জানা যায়, কুখ্যাত রাজাকার হযরত আলীর ছেলে সাবেক কাউন্সিলর কামরুজ্জামান মণ্ডল। স্বাধীনতা বিরোধী কর্মকান্ডের জন্য এলাকার মুক্তিকামী জনতা তার পিতা ও বড়ভাই কাদির, জালাল, সাদির ও দুলাভাই কেতুয়াকে গেনেট দিয়ে খুছিয়ে খুছিয়ে হত্যা করেছে মাওনা ইউনিয়নের সালধো ব্রীজের দক্ষিণ পার্শ্বে।

কামরুজ্জামান মণ্ডলের বড়ভাই হেলাল মন্ডল স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে ডাকাতি আর চুরি-চামারি করতো। স্বাধীনতা বিরোধী এই পরিবারের লোকজনের কারণে এলাকার মানুষ শান্তিতে থাকতে পারতোনা। এদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়েছিলো এলাকার মানুষজন।

কামরুজ্জামান মণ্ডল ৯ম শ্রেনীতে পড়া অবস্থায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে সৈনিক হিসাবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে ৯/১০ মাস চাকরি করার পর সরকারি সম্পদ চুরি করে পালিয়ে অাসেন। এরপর থেকেই নিজেকে দীর্ঘদিন অাত্বগোপনে রাখেন।চাকরি থেকে পালিয়ে এসে অন্যকে মাধ্যমে বদলি পরীক্ষা দিয়ে দাখিল ও আলিম পাশ করেন ৩য় বিভাগে।

শ্রীপুরের কয়েকজন এই প্রতিবেদককে আরোও জানায়, কামরুজ্জামান মণ্ডল ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার কাচিনা ইউনিয়নের তামাইট গ্রামের মৃত তমিজ উদ্দীন মেম্বারের মেয়ে কে অন্যের ঘর থেকে ফুসলিয়ে সংসার ভেঙ্গে নিয়ে অাসেন। সে এক সময় তমিজ মেম্বারের বাড়ীতে থেকে লেখাপড়া করতো বলে তারা জানান। এই থেকে তার শুরু হয় নানা ভণ্ডামি আর প্রতারণা। এরপর সে যোগদেয় জাতীয় পার্টিতে। জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়েই শ্রীপুর পৌর সভাপতি পদ বাগিয়ে নেয় সে। বড়ভাই রফিকুল ইসলাম মন্ডল বুলবুলের ছত্রছায়ায় এখন জাতীয় পার্টি ছেড়ে দিয়ে যোগ দিয়েছে আওয়ামীলীগে।

আওয়ামীলীগে যোগ দিয়েই শুরু করেন দখলবাজি আর মাদক ব্যবসা। যা এখনো করেই চলছে। তার বাড়ীর দক্ষিন দিকে শ্রীপুর-মাওনা রোডে শামসুন্নাহার নামক এক জনৈক মহিলার প্রায় ১০কোটি টাকা মূল্যের ২বিঘা জমি গুন্ডা বাহিনী দিয়ে দখল করে নিয়ে সীমানা প্রাচীর করেছে সাবেক কাউন্সিলর কামরুজ্জামান মন্ডল।

অনুসন্ধানে আরোও জানা যায়, সাবেক কাউন্সিলর কামরুজ্জামান মন্ডল তার মেয়েকে মেডিকেলে ভর্তি করায় উপজাতি কোঠায়। একজন মানুষ কতটা ধুরন্ধর হলে নিজেকে উপজাতি বানিয়ে মেয়েকে মেডিকেলে ভর্তি করাতে পারে।

জনৈক শামসুন্নাহার এই প্রতিবেদককে জানায়, সাবেক কাউন্সিলর, সন্ত্রাসীদের গডফাদার কামরুজ্জামান মন্ডল অবৈধভাবে আমার ২বিঘা জমি দখল করে সীমানা প্রাচীর দিয়েছে। আমি আমার ফিরে পাওয়ার জন্য আইনের আশ্রয় নিয়েছি। সে সন্ত্রাসী আর মাদক ব্যবসায়ী। তার ভয়াল ছোবল থেকে আমরা পরিত্রাণ চাই।

অবৈধ দখলদার, সিন্ডিকেটার, মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী আর দলীয় ক্ষমতার জোরে এখন সে কোটি কোটি টাকার সম্পদের মালিক। এমন কি একটা বাড়ী প্রায় ৬ বছর যাবত নির্মাণ করে যাচ্ছে কামরুজ্জামান মন্ডল। যে বাড়িটিতে আধুনিক সকল উপকরণ রয়েছে।

এখন এলকাবাসীর একটি-ই প্রশ্ন, কামরুজ্জামান মন্ডল যখন কাউন্সিলর নির্বাচিত হয় তখনেই তার নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। মাত্র এই কয়েকটি বছরে সে কিভাবে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে যায়। আর শত শত অভিযোগ থাকার পরেও কিভাবে সে দুদকের চোখ ফাঁকি দিয়ে বহাল তবিয়তে থাকতে পারে এমনটাই ঘুর পাক খাচ্ছে শ্রীপুর পৌরশহরের জনমনে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

খন্দকার ভবন তানোর থানার মোড় প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন তানোর, রাজশাহী থেকে প্রকাশিত। মোবাইল: ০১৭১৫-২৯৭৫২৪, ০১৭১৬-৮৪৪৪৬৫, ০১৯২০-৪৪০১১২ E-mail: cbnews71@gmail.com Web: www.cybernews71.com Facebook: www.facebook.com/cbnews71 www.twitter.com/CyberNews71 Youtube: //www.youtube.com/cbnews71

© কপিরাইট : খন্দকার মিডিয়া গ্রুপ

 বাল্যবিবাহ রোধ করুন, মাদক মুক্ত সমাজ গড়ুন।

ব্রেকিং নিউজ :